High Tension – দৈতস্বত্তার মল্লযুদ্ধ

high-tension

Title : High Tension (2003)

Genre : Horror, Thriller

>High Tension (2003) on IMDb

Download Link

প্রতিটা মানুষের মাঝেই ভিন্ন ভিন্ন স্বত্তা লুকিয়ে থাকে, জীবনের তাগিদে একই মানুষ ভিন্ন ভিন্নরুপে দায়িত্ব পালন করে।
আবার সেইসব আলোকিত শুভ স্বত্তার আড়ালেই লুকিয়ে থাকে অন্ধকার এক হিংস্র পাশবিক স্বত্তা।

কেউ কেউ এই স্বত্তাকে বশ মানিয়ে সারা জীবনই ঢেকে রাখে নিজের বিবেকের চাদরে, কিন্তু সবাই সব পরিস্থিতি একইভাবে মোকাবেলা করতে পারে না।
কেউ কেউ পরিস্থিতির চাপে পড়ে বাধ্য হয় সেই পশুত্বের কাছে হার মানতে। কখনো আবার তার অজান্তেই খোলস ছেড়ে বেড়িয়ে পড়ে সেই পশু, তীক্ষ নখের আচড়ে ক্ষতবিক্ষত করে তোলে তার বাকি সব স্বত্তাকে।
শুরু হয় আমাদের সেই দৈতস্বত্তার লড়াই। যেই জিতুক না কেন, দিনশেষে তা রেখে যায় অনিরাময়যোগ্য কিছু ক্ষতস্থান।

এমনই একটি প্রেক্ষাপটে গড়ে উঠেছে এই মুভির কাহিনী। দুই কলেজ বান্ধবী মারি এবং এলেক্সিয়া একত্রে এলেক্সিয়ার বাড়িতে যায় ছুটি কাটাতে। কিন্তু কে জানতে যে, ভাগ্যদেবী আজ তাদের ভাগ্যে ভয়ংকর কিছু রেখেছেন?
নিঝুম রাতের আধারে সেই বাড়িতে আগমণ ঘটে এক দুর্ধর্ষ খুনীর। একে একে নির্মমভাবে খুন হয় এলেক্সিয়ার মা-বাবা-ভাই। বন্দী হিসেবে তাকে আটকে রাখে সেই অজ্ঞাতনামা খুনী। মারি তার ঘনিষ্ঠ বন্ধুকে বাঁচাবার দুসাধ্য মিশনে নামে। কিন্তু কে এই খুনী? কেনই বা সে চালাচ্ছে এই হত্যাযজ্ঞ?

সেরা হরর মুভির লিস্টে এই মুভিটা বেশ উপরের সারিতেই থাকবে। নিপুন হাতের জমাট কাহিনীর বুনট মুভিটাকে দিয়েছে অন্য মাত্রা। যা আপনাকে প্রতি মুহুর্তেই ফেলে দেবে নিত্য নতুন চ্যালেঞ্জে।
কখনো বা হত্যার নিষ্টুরতায় আঁতকে উঠবেন, কখনো বা অনিশ্চিত ভবিষ্যতের কথা ভেবে বাড়িয়ে তুলবেন নিজের হৃদস্পন্দন।
এক পর্যায়ে যখন কাহিনীর তল খুজে না পেয়ে হাল ছেড়ে দিবেন ঠিক তখনই পরিচালক বের করবেন তার তুরুপের তাস। মুভির যবনিকা টানার পর আপনি হাই ছেড়ে বলবেন, “অহ, তাহলে এই ছিল ব্যাপার?”

ফরাসী হরর মুভির সেরা দিক হচ্ছে গল্প আর পরিচালনা, যেটা হরর মুভির ক্ষেত্রে একটু বিরল। এরা অতিপ্রাকৃত হররের চেয়ে থ্রিলার বেইসড হরর বানানোর কাজে বেশি সিদ্ধহস্ত।
এ মুভিতেও তার ব্যাত্যয় ঘটে নি। একটু রক্তারক্তি, সাথে বেশ খানিকটা থ্রিলার, শেষে কয়েকফোঁটা সাইকোলজী ; সব মিলিয়ে বেশ একটা মুখরোচক আইটেম তৈরী করেছেন পরিচালক।

অভিনয়ের দিক দিয়েও পিছিয়ে নেই মুভির কলাকুশলীরা। প্রধান চরিত্রে অভিনয় করা সেসিল সহ বাকি সব সহঅভিনেতা/নেত্রীরা তাদের সেরা অভিনয় আমাদের উপহার দিয়েছেন।
বরাবরের মতই এই মুভিতেও কম্পিউটার গ্রাফিক্সের কাজ একদমই নেই, পুরোটাই করা হয়েছে প্র্যাকটিক্যাল গ্রাফিক্সের মাধ্যমে, যা সেই দৃশ্যগুলোকে করে তুলেছে আরো হিংস্র, আরো ভয়ংকর।

জীবনে এই প্রথম কোনো হরর মুভির সাউন্ডট্র্যাক এত ভাল লাগল। সাধারণত রোমান্টিক মুভির ক্ষেত্রে এমন হয়, কিন্তু হাই টেনশন মুভিটার মিউজিক এত উপভোগ্য লেগেছে যে মুভি পজ করে রেখেই ডাউনলোড দিয়েছি সাউন্ডট্র্যাক গুলো।
আপনাদেরও আশা করি ভাল লাগবে।

মুভিতে বেশ খানিকটা রক্তারক্তি দৃশ্য রয়েছে যা হরর মুভি মাত্রই স্বাভাবিক, তবুও যারা এমন দৃশ্য সহ্য করতে পারেন না তাদের সতর্ক করে দেয়া হল।

মুভিটাতে ‘৭০ এর দশকের স্ল্যাশার মুভিগুলোর ব্যাপক প্রভাব রয়েছে, যা আলাদা একটা স্বাদ যোগ করে।
মুভি শেষ করে আপনার মনে কিছু প্রশ্ন জাগবেই, পরিচালক সেভাবেই মুভির গল্প সাজিয়েছেন। প্রথম প্রথম সেগুলো অপ্রাসঙ্গিক মনে হলেও একটু ভাবনাচিন্তা করলে পরক্ষণেই ধরতে পারবেন পরিচালকের দৃষ্টিভঙ্গী।

হরর অথবা থ্রিলার, আপনি যেটার ভক্তই হন না কেন, এই মুভি আপনার চাহিদা পুরণ করে দিবে বেশ ভালভাবেই। তো, সময় করে দেখে ফেলুন তাহলে।

আমার রেটিং :
2 Comments
  1. Pritom
    • Ataur Rahman

Leave a Reply